চোখের লালভাব (Eye redness)

শেয়ার করুন

বর্ণনা

এটি পিঙ্ক আই (Pink eye), ব্লাডশট আই (Bloodshot eye) এবং রেড আই (Red eye) নামেও পরিচিত।

কোনো ধরনের অসুখ বা আঘাতের কারণে চোখ লাল হয়ে যেতে পারে । কঞ্জাংটিভাইটিস (Conjunctivitis) এবং সাবকঞ্জাংটিভাল হেমোরেজের (Subconjunctival hemorrhage) কারণে সাধারণত চোখ লাল হয়ে যায়।

কারণ

বিভিন্ন কারণে এই লক্ষণ দেখা যেতে পারে, যেমন:

অ্যালার্জি জনিত কনজাঙ্কটিভাইটিস (Allergic Conjunctivitis) ক্যালাজিয়ন (Chalazion)
চিকেনপক্স (Chickenpox) কনজাঙ্কটিভাইটিস (Conjunctivitis)
কর্নিয়া ইনফেকশন (Cornea infection) মাইয়োপিয়া/ক্ষীণদৃষ্টি (Myopia)
প্রেসবায়োপিয়া (Presbyopia) টেরিজিয়াম (Pterygium)
কোয়াগুলেশন (ব্লিডিং) ডিজঅর্ডার (Coagulation (bleeding) disorder) রেটিনোপ্যাথি ডিউ টু হাই ব্লাড প্রেশার (Retinopathy due to high blood pressure)
ব্যাকটেরিয়া জনিত কনঞ্জাংটিভাইটিস (Conjunctivitis due to bacteria) ভাইরাসজনিত কনজাঙ্কটিভাইটিস (Conjunctivitis due to virus)
কর্নিয়াল অ্যাব্রেশন (Corneal abrasion) হাইপারোপিয়া (Hyperopia)
এক্ট্রোপিয়ন (Ectropion) ইরিডোসাইক্লাইটিস (Iridocyclitis)
এন্ডোফথ্যালমাইটিস (Endophthalmitis) এপেন্ডাইমোমা (Ependymoma)
চোখে বাহ্যিক বস্তু (Foreign body in the eye) স্ক্লেরাইটিস (Scleritis)
হিস্টোপ্লাসমোসিস (Histoplasmosis) অ্যাকিউট গ্লুকোমা (Acute glaucoma)
সাবকঞ্জাংটিভাল হেমারেজ (Subconjunctival hemorrhage) টক্সোপ্লাজমোসিস (Toxoplasmosis)
অ্যাসটিগম্যাটিজম (Astigmatism) ড্রাই আই অফ আননোন কজ (Dry eye of unknown cause)

সংশ্লিষ্ট লক্ষণসমূহ

এই লক্ষণের সাথে অন্যান্য যে সকল লক্ষণ দেখা যেতে পারে সেগুলো হলো:

ঝুঁকিপূর্ণ বিষয়

এ লক্ষণের জন্য ঝুকিপূর্ণ বিষয়গুলো হলো:

  • যেসব পদার্থের কারণে অ্যালার্জির প্রতিক্রিয়া দেখা দেয় সেগুলির সংস্পর্শে থাকলে বা অ্যালার্জিক কঞ্জাংটিভাইটিস (Allergic conjunctivitis) হওয়া।
  • ভাইরাল বা ব্যাকটেরিয়াল কঞ্জাংটিভাইটিসে আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে থাকা।
  • সব সময় কন্ট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার করা।

যারা ঝুঁকির মধ্যে আছে

লিঙ্গঃ পুরুষদের মধ্যে এই লক্ষণ দেখা দেওয়ার গড়পড়তা সম্ভাবনা রয়েছে। মহিলাদের মধ্যে এই লক্ষণ দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা ১ গুণ কম।

জাতিঃ শ্বেতাঙ্গদের মধ্যে এই লক্ষণ দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা ১ গুণ কম। কৃষ্ণাঙ্গ, হিস্প্যানিক ও অন্যান্য জাতির মধ্যে এই লক্ষণ দেখা দেওয়ার গড়পড়তা সম্ভাবনা রয়েছে।

সাধারণ জিজ্ঞাসা

উত্তরঃ বরিক এসিডের সাহায্যে চোখ পরিষ্কার করলে আরামবোধ হয়। বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ভাইরাসের কারণে চোখে ইনফেকশন হয়ে থাকে।

হেলথ টিপস্‌

নিম্নলিখিত পন্থা অবলম্বন করে এই লক্ষণ প্রতিরোধ করা সম্ভবঃ

  • বারবার হাত দিয়ে চোখ স্পর্শ করা যাবে না।
  • ঘন ঘন হাত ধুতে হবে।
  • পরিষ্কার জামা-কাপড় পড়তে হবে।
  • নিয়মিত বালিশের কভার পরিবর্তন করতে হবে।
  • চোখে কোনো ধরনের প্রসাধন সামগ্রী ব্যবহার করা যাবে না।
  • একজনের চোখের প্রসাধন সামগ্রী অন্যজনের ব্যবহার করা উচিৎ নয়।