বাহুতে ব্যথা হওয়া (Arm pain)

শেয়ার করুন

বর্ণনা

বর্ণনাঃ  এই অবস্থায় কব্জির উপরে ও কাঁধের নিচে তীব্র ব্যথা অনুভূত হয়। বিভিন্ন কারণে এই সমস্যা হতে পারে এবং ব্যথার স্থায়ীত্ব এর কারণের উপর নির্ভর করে। এই ব্যথা ঘাড় ও মেরুদন্ড থেকে সৃষ্টি হয়। বাম বাহুতে ব্যথা হওয়া হার্ট অ্যাটাকের পূর্ব লক্ষণ হতে পারে।

কারণ

বিভিন্ন কারণে এই লক্ষণ দেখা যেতে পারেঃ যেমন-

অ্যাঞ্জাইনা (Angina) হার্ট এ্যাটাক (Heart attack)
মাংসপেশীর খিঁচুনি বা টান (Muscle spasm) থ্যালাসেমিয়া (Thalassemia)
পেরিফেরাল নার্ভ ডিজঅর্ডার (Peripheral nerve disorder) ব্রুইস (Bruise)
কারপাল টানেল সিন্ড্রোম (Carpal tunnel syndrome) সেরিব্রাল এডিমা (Cerebral edema)
ডিজলোকেশন অফ ভার্টিব্রা (Dislocation of vertebra) স্পন্ডাইলোসিস (Spondylosis)
থ্রম্বোফ্লেবাইটিস (Thrombophlebitis) ভন উইলিব্র্যান্ড ডিজিজ (Von Willebrand disease)
হার্ণিয়েটেড ডিস্ক (Herniated disk) ব্র্যাকিয়াল নিউরাইটিস (Brachial neuritis)
ফ্রেডরিক অ্যাটাক্সিয়া (Friedreich's ataxia) বারসাইটিস (Bursitis)
র‍্যাবডোমায়োলাইসিস (Rhabdomyolysis) ডিজেনারেটিভ ডিস্ক ডিজিজ (Degenerative disc disease)
ডিজলোকেশন অফ দি এলবো (Dislocation of the elbow) ইনজুরি টু দি স্পাইনাল কর্ড (Injury to the spinal cord)
ডিজলোকেশন অফ দি রিস্ট (Dislocation of the wrist) ল্যাটেরাল এপিকন্ডাইলাইটিস (টেনিস এলবো) (Lateral epicondylitis (tennis elbow))
রোটেটর ক্লাফ ইনজুরি (Rotator cuff injury) ফাইব্রোমায়ালজিয়া (Fibromyalgia)
লিম্ফ্যাঞ্জাইটিস (Lymphangitis) নিউরালজিয়া (Neuralgia)
স্প্রেইন অর স্ট্রেইন (Sprain or strain) পেম্ফিগাস (Pemphigus)
টেন্ডিনাইটিস (Tendinitis) টরটিকোলিস (Torticollis)
ভারনিকে করসেকফ সিন্ড্রোম (Wernicke Korsakoff syndrome) ফ্র্যাকচার অফ দি রিব (Fracture of the rib)
ফ্র্যাকচার অফ দি শোল্ডার (Fracture of the shoulder) ফ্র্যাকচার অফ দি হ্যান্ড (Fracture of the hand)

সংশ্লিষ্ট লক্ষণসমূহ

এই লক্ষণের সাথে অন্যান্য যে সকল লক্ষণ দেখা যেতে পারে সেগুলো হলোঃ

যারা ঝুঁকির মধ্যে আছে

লিঙ্গঃ পুরুষদের মধ্যে এই লক্ষণ দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা ১ গুণ কম পুরুষ ও মহিলা উভয়ের মধ্যে এই লক্ষণ দেখা দেওয়ার গড়পড়তা সম্ভাবনা রয়েছে।

জাতিঃ হিস্প্যানিক ও অন্যান্য জাতিদের মধ্যে এই লক্ষণ দেখা দেওয়ার সম্ভাবনা ১ গুণ কম। শ্বেতাঙ্গ ও কৃষ্ণাঙ্গদের মধ্যে এই লক্ষণ দেখা দেওয়ার গড়পড়তা সম্ভাবনা রয়েছে।

সাধারণ জিজ্ঞাসা

উত্তরঃ এই অবস্থায় যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। চিকিৎসক বিভিন্ন টেস্টের মাধ্যমে রোগীর শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে এই ব্যথা হওয়ার সঠিক কারণ জানাতে পারবেন।

উত্তরঃ এই অবস্থায় যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। চিকিৎসক বিভিন্ন টেস্টের মাধ্যমে রোগীর শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে এই ব্যথা হওয়ার সঠিক কারণ জানাতে পারবেন।

উত্তরঃ এই অবস্থায় যত দ্রুত সম্ভব চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। চিকিৎসক বিভিন্ন টেস্টের মাধ্যমে রোগীর শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করে এই ব্যথা হওয়ার সঠিক কারণ জানাতে পারবেন।

হেলথ টিপস্‌

নিম্নলিখিত পন্থা অবলম্বন করে এই লক্ষণ প্রতিরোধ করা সম্ভবঃ

  • ব্যথার স্থানে বরফ দেওয়া যেতে পারে, এতে করে ব্যক্তি আরামবোধ করে।
  • কিছুদিন বিশ্রাম নিতে হবে।
  • ফিজিকাল থেরাপিস্টের শরণাপন্ন হতে হবে।
  • ধীরে ধীরে দৈনন্দিন কাজ করতে হবে।