ভলভুলাস (Volvulus)

শেয়ার করুন

বর্ণনা

পরিপাক নালীর অংশ (সাধারণত অন্ত্র) পেঁচিয়ে যাওয়ার ফলে রক্তপ্রবাহ বাধাগ্রস্থ হওয়াকে ভলভিউলাস বলে। এই রোগের কারণে গ্যাংগ্রিন (gangrene), অন্ত্রে আবদ্ধতা, অন্ত্রে ছিদ্র হওয়া ও পেরিটোনাইটিস (peritonitis) ও পরিপাক নালীর আক্রান্ত অংশ অকেজো হয়ে যাওয়ার মতো  সমস্যা  হতে পারে। পাকস্থলী, সিকাম (cecum), ক্ষুদ্রান্ত্র, সিগময়েড কোলন (sigmoid colon)-এসব স্থানই ভলভিউলাসে আক্রান্ত হয়ে থাকে । ভ্রুণ বৃদ্ধি পাওয়ার সময় অন্ত্র অস্বাভাবিকভাবে ঘুরে গেলে এই রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এই কারণে ভলভিউলাস হলে তা হঠাৎ করে দেখা। ভলভিউলাসের কারণে পেটে ব্যথা, বমি বমি ভাব ও মলে রক্ত আসার দেওয়ার মতো লক্ষণ দেখা দেয়। রোগটির চিকিৎসার জন্য জরুরী ভিত্তিতে সার্জারি করার মাধ্যমে পরিপাক নালীর আবদ্ধতা দূর করে রক্তপ্রবাহ স্বাভাবিক করা হয়।

কারণ

আক্রান্ত ব্যক্তির বয়স ও শারীরিক অবস্থার উপর ভিত্তি করে ভলভিউলাসের বিভিন্ন কারণ থাকতে পারে। সাধারণত নিম্নলিখিত কারণে এই রোগ হয়ে থাকে -

  • জন্মাবস্থায় অন্ত্র গঠনে সমস্যা: গর্ভধারণের প্রথম ৮ সপ্তাহের মধ্যে অন্ত্রের মধ্যাংশ ঘুরে অ্যাবডোমিনাল ওয়ালের কাছে চলে যায়। যদি মেসেন্টারিক বেজ (mesenteric base) সংকীর্ণ হয় এবং এর কারণে যদি অন্ত্রের অবস্থান অস্বাভাবিক হয়ে তা অ্যাবডোমিনাল ওয়ালের সাথে লেগে যায়, তাহলে ভলভিউলাস হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।
  • পরিপাক নালীতে অস্বাভাবিকতা দেখা দিলে অন্ত্রে পেঁচিয়ে যেতে পারে ও সম্পূর্ণ ভলভিউলাস অবস্ট্রাকশন (volvulus obstruction) হতে পারে।
  • আড়াআড়িভাবে অবস্থিত ও কোলনের অপ্রয়োজনীয় বৃদ্ধি ও অন্ত্রের অতিরিক্ত টিস্যুর কারণে সম্পূর্ণ ভলভিউলাস অবস্ট্রাকশন হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।
  • ডুশিনি মাসকুলার ডিসট্রফিতে (Duchenne Muscular Dystrophy) আক্রান্ত ব্যক্তিদের স্মুথ মাসল ডিসফাঙ্কশন হলে ভলভিউলাস হতে পারে।
  • কোষ্ঠকাঠিন্যের কারণে কোলনে আবদ্ধতা ও অন্ত্র পেঁচিয়ে গেলেও ভলভিউলাস হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

লক্ষণ

এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে চিকিৎসকেরা নিম্নলিখিত লক্ষণগুলি চিহ্নিত করে থাকেন:

ঝুঁকিপূর্ণ বিষয়

নিম্নলিখিত বিষয়গুলি ভলভিউলাস হওয়ার ঝুঁকি বৃদ্ধি করে-

  • অন্ত্র অস্বাভাবিকভাবে ঘুরে যাওয়া - জন্মগত কারণে অন্ত্রের অস্বাভাবিক বৃদ্ধি।

পেট বা পেলভিসে স্কার টিস্যু (Scar tissue) উৎপন্ন হওয়া। যাদের পেটে পূর্বে সার্জারি করা হয়েছে তাদের এই সমস্যা বেশি হয়।

  • অ্যাপেনডিসাইটিস
  • কোলনোস্কপি
  • ডায়াফ্রাম্যাটিক হার্নিয়া (Diaphragmatic hernia)
  • হার্শপ্রাংস ডিজিজ (Hirschsprung's disease)
  • ইন্টাসাসসেপশান (Intussusception )
  • মেকেলস্‌ ডাইভার্টিকুলাম (Meckel's diverticulum)

যারা ঝুঁকির মধ্যে আছে

লিঙ্গঃ পুরুষ ও নারী উভয়ের মধ্যে এই রোগ নির্ণয় হওয়ার গড়পড়তা সম্ভাবনা থাকে।

জাতিঃ শ্বেতাঙ্গ ও কৃষ্ণাঙ্গ মধ্যে এই রোগ নির্ণয় হওয়ার গড়পড়তা সম্ভাবনা থাকে। হিস্প্যানিকদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয় হওয়ার সম্ভাবনা ৩৮ গুণ কম। অন্যান্য জাতির মানুষের  মধ্যে এই রোগ নির্ণয় হওয়ার সম্ভাবনা ১৩ গুণ কম। 

সাধারণ জিজ্ঞাসা

উত্তরঃ ভলভিউলাস হওয়ার পর ৬ ঘন্টার মধ্যে মোচড়ানো অন্ত্র ঠিক না করা হলে তা অকেজো হয়ে যায়। এই রোগ হলে অবশ্যই চিকিৎসা করানো উচিৎ।

 উত্তরঃ ভলভিউলাসের চিকিৎসা হওয়ার পর ১ সপ্তাহ পর্যন্ত এই সমস্যা  স্থায়ী হতে পারে। 

উত্তরঃ ভলভিউলাস ঠিক না হওয়া অব্দি বমি স্থায়ী  হয়। ভলভিইলসের চিকিৎসা হওয়ার পর অন্ত্রের ক্রিয়াশীল স্বাভাবিক হতে ২৪ ঘন্টা লাগতে পারে। যদি এর চিকিৎসার জন্য সার্জারির প্রয়োজন হয়, তাহলে ২-৩  দিন সময় লাগতে পারে।

হেলথ টিপস্‌

ভলভিউলাসের কারণে আক্রান্ত ব্যক্তির মৃত্যু হবে কীনা, তা রোগটি কতোক্ষণ পর নির্ণিত হচ্ছে এবং কতোক্ষণ পর চিকিৎসা নেওয়া হচ্ছে তার উপর নির্ভরশীল। অর্থাৎ কী পরিমাণে রক্তপ্রবাহ বাঁধাপ্রাপ্ত হয়েছে, তা এই ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ। দ্রুত লক্ষণ সনাক্ত করে প্রাথমিক পর্যায়ে চিকিৎসা করা হলে পরিপাক নালীর ক্ষতি রোধ ও সার্জারির সম্ভাবনা কমানো যেতে পারে।

শিশুদের ক্ষেত্রেও একইভাবে রোগটি পর্যবেক্ষণ করে দ্রুত চিকিৎসা নেওয়া প্রয়োজন। যে সব ব্যক্তির ডুশিনি মাসকুলার ডিসট্রফির মতো সমস্যা রয়েছে তাদেরকে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। দীর্ঘ সময়ব্যাপী ও ঘন ঘন কোষ্ঠকাঠিন্যের লক্ষণ দেখা দিলে টেস্টের পর সঠিক চিকিৎসা গ্রহণ করার মাধ্যমে ভলভিউলাস প্রতিরোধ করা সম্ভব।

বিশেষজ্ঞ ডাক্তার

প্রফেসর ডা:এম.এস. আরফিন

গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজি ( খাদ্যনালী, পরিপাকতন্ত্র) ( Gastroenterology)

প্রফেসর মো: আনিছুর রহমান

গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজি ( খাদ্যনালী, পরিপাকতন্ত্র) ( Gastroenterology)

প্রফেসর ডা: এ.এস.এম.এ রাইহান

গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজি ( খাদ্যনালী, পরিপাকতন্ত্র) ( Gastroenterology)

সহকারী অধ্যাপক ডাঃ মোঃ সালাউদ্দিন ফারুক

জেনারেল সার্জারী ( General Surgery), ইউরোলজি ( মূত্রতন্ত্রের সার্জারী) ( Urology)

এমবিবিএস, এফসিপিএস(সার্জারী), এমএস(ইউরোলজি)

প্রফেসর ডা: এম.এ মাসুদ

গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজি ( খাদ্যনালী, পরিপাকতন্ত্র) ( Gastroenterology)

প্রফেসর ডা: মো: হাসান মাসুদ

গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজি ( খাদ্যনালী, পরিপাকতন্ত্র) ( Gastroenterology)

প্রফেসর ডা: এম.এ মাসুদ

গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজি ( খাদ্যনালী, পরিপাকতন্ত্র) ( Gastroenterology)

ডা: চঞ্চল কুমার ঘোষ

গ্যাস্ট্রোএন্টেরোলজি ( খাদ্যনালী, পরিপাকতন্ত্র) ( Gastroenterology)