থ্রম্বোসাটোপেনিয়া (Thrombocytopenia)

শেয়ার করুন

বর্ণনা

পায়ের এক বা একাধিক শিরা ব্লাড ক্লট বা রক্ত জমায় বাঁধার কারণে ব্লক হয়ে গেলে তাকে থ্রম্বোফ্লেবাইটিস বলে। খুব কম ক্ষেত্রেই এই রোগ ঘাড় ও বাহুতে হয়ে থাকে।

এই থ্রম্বোফ্লেবাইটিস ত্বকের নিচের দিকে হলে তাকে সুপারফিশিয়াল থ্রম্বোফ্লেবাইটিস এবং শিরার গভীরের দিকে হলে তাকে ডিপ ভেইন থ্রম্বোসিস বলে। এই রোগ সাধারণত কোন ধরনের আঘাত, অপারেশন বা দীর্ঘদিন অসাড় অবস্থায় থাকার কারণে হয়ে থাকে। সুপারফিশিয়াল থ্রম্বোফ্লেবাইটিস এর সাথে ভ্যারিকোস ভেইন ও হতে পারে।

এর কারণে এমবোলাস ও পালমোমনারী এবলিজম হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায়। রক্তের ঘনত্ব কমে যায় এমন ঔষধ গ্রহণের মাধ্যমে ডিপ ভেইন থ্রম্বোসিস ও সুপারফিশিয়াল থ্রম্বোফ্লেবাইটিস এর চিকিৎসা করানো হয়।


কারণ

অপারেশন বা কোন অসুস্থতার কারণে দীর্ঘদিন বিশ্রাম নেওয়া বা গাড়ি ও প্লেনে অনেকক্ষণ বসে থাকার কারণে পায়ের শিরাতে রক্ত জমাট বাঁধে।

ভ্যারিকোস ভেইনের কারণেও এই রোগ হতে পারে। ইন্ট্রাভেনাস টিউব বা আই-ভি, এর বিভিন্ন জটিলতার কারণে এই রোগ হতে পারে।

এছাড়াও ক্যান্সার, পিল বা হরমোন ইস্ট্রোজেনের গ্রহণ, বয়স্ক ব্যক্তি, স্থূলতা, ধূমপান ও পরিবারের অন্য কারো মধ্যে এই রোগ থাকলে থ্রম্বোফ্লেবাইটিস হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায়।


লক্ষণ

এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে চিকিৎসকেরা নিম্নলিখিত লক্ষণগুলি চিহ্নিত করে থাকেন:

ঝুঁকিপূর্ণ বিষয়

অপারেশন, হার্ট অ্যাটাক ও পা ভেঙ্গে যাওয়ার পর দীর্ঘদিন শুয়ে বা বসে থাকার কারণে এই রোগ হয়ে থাকে। এছাড়াও যে সব বিষয়ের কারণে এই রোগ হওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায় সেগুলো হলঃ

  • স্ট্রোকের কারণে পা বা হাত প্যারালাইজ হয়ে যাওয়া।
  • গর্ভবতী মহিলাদের ক্ষেত্রে পেল্ভিস বা পায়ের শিরায় চাপ বেড়ে যাওয়া।
  • জন্ম নিয়ন্ত্রক পিল বা হরমোন রিপ্লেসমেন্ট থেরাপির গ্রহণ।
  • পরিবারের অন্য কোন সদস্যের মধ্যে এই সমস্যা থাকা।
  • গাড়ি বা প্লেনে দীর্ঘসময় ধরে বসে থাকা।
  • বয়স ৬০ এর বেশি হওয়া।
  • ভেরিকোস ভেইনের সমস্যা থাকা।

যারা ঝুঁকির মধ্যে আছে

লিঙ্গঃ পুরুষ ও মহিলা উভয়ের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের গড়পড়তা সম্ভাবনা রয়েছে।

জাতিঃ শ্বেতাঙ্গদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের গড়পড়তা সম্ভাবনা রয়েছে। কৃষ্ণাঙ্গ, হিস্পানিক ও অন্যান্য জাতিদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের সম্ভাবনা ১ গুণ কম।


সাধারণ জিজ্ঞাসা


উত্তরঃ শিশুদের এই রোগে সাধারণত আক্রান্ত হয় না। তবে বিভিন্ন কারণে শিশুদেরও  এই রোগ হতে পারে।

 

উত্তরঃ থ্রম্বোসাইটোপেনিয়া প্রতিকার এর কারণের উপর নির্ভর করছে। ঔষধ গ্রহণ বা ইনফেকশনের কারণে এই রোগ হলে তা সহজে চিকিৎসা করা যায়। তবে অস্থিমজ্জার সমস্যা [যেমন-ক্যান্সার ও মায়লোডিসপ্ল্যাসটিক সিনড্রোম (myelodysplastic syyndrome)] ও অটোইমিউন সমস্যার কারণে সৃষ্ট থ্রম্বোসাইটোপেনিয়ার চিকিৎসা করা কঠিন। 

হেলথ টিপস্‌

মেডিকেল ট্রিটমেন্ট ও নিজের খেয়াল নিজে রাখার মাধ্যমে শারীরিক অবস্থার উন্নতি সম্ভব। 

  সুপারফিশিয়াল থ্রম্বোফ্লেবাইটিস- এ আক্রান্ত ব্যক্তিদের ক্ষেত্রেঃ

  • দিনে কয়েকবার আক্রান্ত স্থানে গরম সেঁক দিতে হবে।
  • পা উঁচুতে রাখতে হবে।  
  • চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী মেডিসিন গ্রহণ করতে হবে।  

  ডিপ ভেইন থ্রম্বোসিসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের ক্ষেত্রেঃ 

  • দিনে কয়েকবার আক্রান্ত স্থানে গরম সেঁক দিতে হবে। 
  • পা ফুলে গেলে পা উঁচুতে রাখতে হবে। 
  • চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী মেডিসিন গ্রহণ করতে হবে। 

বিশেষজ্ঞ ডাক্তার

প্রফেসর ডা: এ বি এম আব্দুল্লাহ

মেডিসিন ( Medicine)

MRCP(UK), FRCP(Edin)

অধ্যাপক ডাঃ এম এ আজহার

মেডিসিন ( Medicine)

এমবিবিএস , এফসিপিএস(মেডিসিন) , এফআরসিপি(এডিন), এফএসিপি

প্রফেসর ডাঃ মোঃ আলি হোসেন

মেডিসিন ( Medicine)

MBBS,FCPS,MD

প্রফেসর ডা: মোঃ মামুন আল মাহাতাব (স্বপ্নীল)

মেডিসিন ( Medicine), হেপাটোলজি ( লিভার) ( Hepatology)

প্রফেসর ডা: আনিসুল হক

মেডিসিন ( Medicine)

MBBS,FCPS,FRCP(Edin),PHD(Gent)

প্রফেসর ডা: খাজা নাজিম উদ্দীন

মেডিসিন ( Medicine)

MBBS(Dhaka),FCPS(Med), FRCP(Glasgo), FCPS(USA)