লিম্ফোমা (Lymphoma)

শেয়ার করুন

বর্ণনা

লিম্ফোমা হলো এমন একটি ক্যান্সার যা লিম্ফেটিক সিস্টেমে হয়ে থাকে। লিম্ফনোড (লিম্ফ গ্রান্ড), স্প্লিন, থাইমাস গ্ল্যান্ড এবং বোন ম্যারো (অস্থি মজ্জা) দ্বারা লিম্ফেটিক সিস্টেম গঠিত। সাধারনত এই সমস্ত অংশে লিম্ফোমা দেখা দেয় তাছাড়াও শরীরের অন্যান্য অংশেও এই রোগ হতে পারে।

লিম্ফোমা বিভিন্ন প্রকারের হয়ে থাকে। প্রধান দুইটি লিম্ফোমা হলো হজকিন'স লিম্ফোমা এবং নন হজকিন'স লিম্ফোমা। এই রোগের ধরন, তীব্রতার উপর নির্ভর করে এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসা করা হয়। কেমোথেরাপি, রেডিয়েশন থেরাপি, স্টেম সেল ট্রান্সপ্লান্ট এবং ঔষধ ব্যবহারের মাধ্যমে এই রোগের চিকিৎসা করা হয়।


কারণ

লিম্ফোমার সুনির্দিষ্ট কোনো কারণ নেয়। বিভিন্ন কারণে এই রোগের ঝুঁকি বেড়ে যায়।                              

লক্ষণ

এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে চিকিৎসকেরা নিম্নলিখিত লক্ষণগুলি চিহ্নিত করে থাকেন:

ঝুঁকিপূর্ণ বিষয়

হজকিন'স লিম্ফোমার ঝুঁকিপূর্ণ বিষয় গুলো নিম্নরূপ।

  • পূর্বে এপস্টাইন বার ভাইরাসের (এবিভি) কারণে ইনফেকশন অথবা মনোনিউক্লিওসিস দেখা দিলে
  • দুর্বল ইমিউন সিস্টেম
  • যাদের বয়স ১৫ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে এবং যাদের বয়স ৫৫ বছরের বেশি তাদের এই রোগ হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে।
  • ৫ শতাংশ ব্যক্তি বংশগত কারণে এই রোগে আক্রান্ত হয়ে থাকে।

নন হজকিন'স লিম্ফোমার ঝুঁকিপূর্ণ বিষয়গুলো নিম্নরূপ।

  • যাদের বয়স ৬০ বছরের বেশি তাদের এই রোগ হওয়ার ঝুঁকি বেশি থাকে
  • নির্দিষ্ট কিছু রাষায়নিক পদার্থ যেমনঃ বেনজিন এবং কীটনাশকের সংস্পর্শে আসলে এই রোগের ঝুঁকি বেড়ে যায়
  •  পূর্বে কেমোথেরাপি অথবা রেডিয়েশন থেরাপি গ্রহন করলে এই রোগের ঝুঁকি বেড়ে যায়।
  •  রেডিয়েশন এক্সপোজার
  •  দুর্বল ইমিউন সিস্টেম এবং ‘এইচ আই ভি’ ইনফেকশন
  •  ‘এইচ আই ভি’, ‘এইচ টি এল ভি- ১’ ‘এইচ এইচ ভি’ অথবা এপস্টাইন বার ভাইরাসের (এবিভি) কারণে ইনফেকশন দেখা দিলে
  • হ্যালাকোব্যাকটার পেলোরাই এর কারণে ক্রনিক ইনফেকশন দেখা দিলে  

যারা ঝুঁকির মধ্যে আছে

লিঙ্গঃ পুরুষদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের গড়পড়তা সম্ভাবনা রয়েছে। মহিলাদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের সম্ভাবনা ১ গুণ কম। 

জাতিঃ শেতাঙ্গদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের গড়পড়তা সম্ভাবনা রয়েছে। অন্যদিকে কৃষ্ণাঙ্গদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের সম্ভাবনা ১ গুণ কম, হিস্প্যানিকদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের সম্ভাবনা ২ গুণ কম এবং অন্যান্য জাতির মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের সম্ভাবনা ১ গুণ কম।       


সাধারণ জিজ্ঞাসা


উত্তরঃ লিম্ফ নোড ব্যতিত লিভার, পাকস্থলী এবং মস্তিষ্কে লিম্ফোমা দেখা দেয়। লিম্ফ নোড গুলো এই রোগে আক্রান্ত না হলেও মাঝে মাঝে শরীরের অন্যান্য অংশে এই রোগ দেখা দিতে পারে।           

উত্তরঃ এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তির চিকিৎসার জন্য নতুন নতুন চিকিৎসা পদ্ধতি আবিষ্কৃত হচ্ছে। অঙ্কোলজিস্ট বা ক্যান্সার বিশেষজ্ঞেরা এই রোগ নিরাময়ের জন্য কার্যকারী চিকিৎসা পদ্ধতি আবিষ্কারের চেষ্টা করছেন।                                                                       

হেলথ টিপস্‌

লিম্ফোমা প্রতিরোধের জন্য কোনো সুনির্দিষ্ট পদ্ধতি নেয়। ‘এইচ আই ভি’, ‘ই বি ভি’ হেপাটাইটিস ভাইরাসের কারণে ইনফেকশন দেখা দিলে এই রোগ হয়ে থাকে। ঘনঘন হাত ধোঁয়া, নিরাপদ যৌন সম্পর্ক বজায় রাখার মাধ্যমে এই ধরনের ইনফেকশন প্রতিরোধ করা যায়। তাছাড়াও অন্যের ব্যবহৃত ইনজেকশনের সূঁচ, রেজার, টুথব্রাশ ব্যবহার করা উচিত নয়।

হজকিন'স লিম্ফোমা রোগটিকে সহজেই নিরাময় করা যায়। তবে হজকিন'স লিম্ফোমা রোগে আক্রান্ত ব্যক্তির সুস্থ হতে বেশ কিছু দিন সময় লাগে।

অনেক ব্যক্তিই লিম্ফোমার চিকিৎসা করে সুস্থভাবে বেঁচে আছেন।


বিশেষজ্ঞ ডাক্তার

প্রফেসর ডা: এ বি এম আব্দুল্লাহ

মেডিসিন ( Medicine)

MRCP(UK), FRCP(Edin)

প্রফেসর ডা: খাজা নাজিম উদ্দীন

মেডিসিন ( Medicine)

MBBS(Dhaka),FCPS(Med), FRCP(Glasgo), FCPS(USA)

ডাঃএস জি মোগনী মওলা

মেডিসিন ( Medicine)

MBBS, FCPS(Medicine), FACP(America)

অধ্যাপক ডাঃ এম এ আজহার

মেডিসিন ( Medicine)

এমবিবিএস , এফসিপিএস(মেডিসিন) , এফআরসিপি(এডিন), এফএসিপি

প্রফেসর ডা: আনিসুল হক

মেডিসিন ( Medicine)

MBBS,FCPS,FRCP(Edin),PHD(Gent)

প্রফেসর ডাঃ মোঃ আলি হোসেন

মেডিসিন ( Medicine)

MBBS,FCPS,MD

প্রফেসর ডা: মোঃ মামুন আল মাহাতাব(স্বপনিল)

মেডিসিন ( Medicine), হেপাটোলজি ( লিভার) ( Hepatology)