অ্যাকিউট অটাইটিস মিডিয়া (Acute otitis media)

শেয়ার করুন

বর্ণনা

কানের পর্দার বাইরে অর্থাৎ মধ্যকর্ণেবাতাসপূর্ন স্থানে ব্যাকটেরিয়া অথবা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে অ্যাকিউট অটাইটিস মিডিয়া রোগটি হয়ে থাকে প্রাপ্তবয়স্কদের তুলনায় বাচ্চাদের এই রোগ বেশি হয় কানের ইনফেকশন বা সংক্রমণ হলে কানের মধ্যবর্তী স্থান ফুলে যায় এবং এই মধ্যবর্তীস্থানে তরল পদার্থ জমা হয় যার ফলে কানে ব্যথা অনুভূত হয়

কানের ইনফেকশন সাধারণত কোনো প্রকার চিকিৎসা ছাড়াই ভালো হয় তবে এই রোগের চিকিৎসার ক্ষেত্রে ব্যথা নিয়ন্ত্রণ এবং এই সমস্যাকে নিবিড় পর্যবেক্ষন করতে হবে শিশু এবং যে কোনো বয়সের ব্যক্তির কানে ইনফেকশন হলে অ্যান্টিবায়োটিক জাতীয় ঔষধ ব্যবহার করতে হবে

কারণ

কানের মধ্যবর্তী স্থানে ব্যাকটেরিয়া অথবা ভাইরাস সংক্রমণের কারণে কানের ইনফেকশন দেখা দেয় সর্দি, জ্বর অথবা অ্যালার্জির কারণেও কানের ইনফেকশন হয় যার ফলে নাসিকাপথগলা এবং ইউস্টেসিয়ান টিউব বন্ধ হয়ে ফুলে যায়

লক্ষণ

এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে চিকিৎসকেরা নিম্নলিখিত লক্ষণগুলি চিহ্নিত করে থাকেন:

ঝুঁকিপূর্ণ বিষয়

কানের ইনফেকশন বা সংক্রমণের ঝুঁকিপূর্ন বিষয়গুলো নিম্নে দেওয়া হলোঃ

 

         ৬ থেকে ২ বছর বয়সের বাচ্চাদের উস্টেসিয়ান টিউবের আকার আকৃতি ছোট হওয়ার কারণে এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকার কারণে কানের ইনফেকশন বা সংক্রমণ হবার ঝুঁকি বেশি

         যেসব বাচ্চাদের বাসাবাড়িতে লালন পালন করা হয় তাদের চেয়ে চাইল্ডকেয়ার সেন্টারের বাচ্চারা সর্দি কাশিতে বেশি আক্রান্ত হয় যার ফলে চাইল্ডকেয়ার সেন্টারের বাচ্চাদের এই রোগ হবার ঝুঁকি বেশি থাকে

         যেসব বাচ্চারা মাতৃদুগ্ধ পান করে তাদের তুলনায় যেসব বাচ্চারা শোয়া অবস্থায় ফিডারে দুধ খায় তাদের এই রোগ হবার ঝুঁকি বেশি থাকে

         শীতকালে সর্দি এবং জ্বরের প্রকোপ বেড়ে যায় যার কারণে কানের ইনফেকশন বেশি মাত্রায় দেখা যায় যাদের সিজনাল অ্যালার্জি আছে তাদের এই রোগ হবার ঝুঁকি বেশি থাকে

        ধূমপান এবং বায়ুদূষণের কারণেও এই রোগ হবার ঝুঁকি বেড়ে যায়

যারা ঝুঁকির মধ্যে আছে

লিঙ্গঃ পুরুষদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের গড়পড়তা সম্ভাবনা রয়েছে মহিলাদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের সম্ভাবনা ১ গুণ কম

জাতিঃ শেতাঙ্গ, কৃষ্ণাঙ্গ এবং হিস্প্যানিকদের মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের গড়পড়তা সম্ভাবনা রয়েছে অন্যান্য জাতির মধ্যে এই রোগ নির্ণয়ের সম্ভাবনা ১ গুণ কম

সাধারণ জিজ্ঞাসা

উত্তরঃ ৬ থেকে ৮ সপ্তাহের মধ্যে এই ধরনের ইনফেকশন সম্পূর্নরূপে ভালো হয়ে যায় ইবুপ্রোফেন অথবা অ্যাসিটামিনোফেন ব্যবহার করার মাধ্যমে কানের ব্যথা নিয়ন্ত্রণ করা যায় কোনো প্রকার চিকিৎসা ছাড়াই কিছু কিছু ভাইরাসজনিত ইনফেকশন খুব অল্প কিছু দিনের মধ্যেই ভালো হয়ে যায় তবে কিছু কিছু ইনফেকশন মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে যেমন- কানের নিকটবর্তী হাড়ে ফোঁড়া এই অবস্থায় অপারেশনের মাধ্যমে ফোঁড়া অপসারন করা হয়। 

উত্তরঃ অ্যাকিউট অটাইটিস মিডিয়া বা কানের ইনফেকশন খুব অল্প কিছু দিন স্থায়ী হয় চিকিৎসা করার ২৪ থেকে ৪৮ ঘন্টার মধ্যেই এই ধরনের ইনফেকশনে আক্রান্ত রোগীরা ভালো অনুভব করে ৩ থেকে ১০ দিনের মধ্যেই ইনফেকশন সম্পূর্ণভাবে ভাল হয়ে যায় কয়েক সপ্তাহের পরে কানের মধ্যকার তরল পদার্থ কানের পর্দার বাইরে বের হয়ে আসে এবং কান পুরোপুরি ভালো হয়ে যায়। 

হেলথ টিপস্‌

নিন্মলিখিত বিষয়গুলো অনুসরণ করার মাধ্যমে কানের ইনফেকশন হবার ঝুঁকি কমানো সম্ভব:

 

  • শিশুদেরকে ঘন ঘন এবং ভালো করে হাত ধোয়ার শিক্ষা দিতে হবে এবং তারা যেন অন্য কারো পানি এবং খাবারের পাত্র ব্যবহার না করে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে শিশুদেরকে মুখে হাত রেখে কাশি দেওয়ার শিক্ষা দিতে হবে যেসব শিশুদেরকে চাইল্ডকেয়ার সেন্টারে রাখা হয়, সেসব শিশুদেরকে অল্প সময়ের জন্য চাইল্ডকেয়ার সেন্টারে রাখার চেষ্টা করতে হবে চাইল্ডকেয়ার সেন্টারে সকল শিশুদের যত্ন নেওয়া সম্ভব হয় না শিশুর অসুস্থতার সময় তাকে চাইল্ডকেয়ার সেন্টারে অথবা স্কুলে না রাখার চেষ্টা করতে হবে
  •  বাড়িতে যেন কেউ ধূমপান না করে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। বাড়ির বাইরে ধূমপানমুক্ত পরিবেশে থাকতে হবে
  • যদি সম্ভব হয় আপনার শিশুকে কমপক্ষে ৬ মাস মাতৃদুগ্ধ পান করান
  •  শোয়া অবস্থায় শিশুকে ফিডারে দুধ খাওয়ানো পরিহার করতে হবে
  • কোন কোন টিকাগুলো আপনার শিশুর জন্য উপযোগী সে সকল বিষয়ে চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করুন সিজনাল (ঋতুকালীন) জ্বর এবং নিউমোকোক্কাল টিকাগুলো কানের ইনফেকশন প্রতিরোধে সহায়ক

বিশেষজ্ঞ ডাক্তার

প্রফেসর ডা: আনিসুল হক

মেডিসিন ( Medicine)

MBBS,FCPS,FRCP(Edin),PHD(Gent)

অধ্যাপক ডাঃ এম এ আজহার

মেডিসিন ( Medicine)

এমবিবিএস , এফসিপিএস(মেডিসিন) , এফআরসিপি(এডিন), এফএসিপি

প্রফেসর ডা: এম. আলমগীর চৌধুরী

অটোল্যারিঙ্গোলজি ( নাক, কান, গলা) ( Otolaryngology)

ডাঃএস জি মোগনী মওলা

মেডিসিন ( Medicine)

MBBS, FCPS(Medicine), FACP(America)

প্রফেসর ডাঃ মোঃ আলি হোসেন

মেডিসিন ( Medicine)

MBBS,FCPS,MD

প্রফেসর ডা: নাসিমা আক্তার

অটোল্যারিঙ্গোলজি ( নাক, কান, গলা) ( Otolaryngology)

প্রফেসর ডা: এ বি এম আব্দুল্লাহ

মেডিসিন ( Medicine)

MRCP(UK), FRCP(Edin)

প্রফেসর ডা: খাজা নাজিম উদ্দীন

মেডিসিন ( Medicine)

MBBS(Dhaka),FCPS(Med), FRCP(Glasgo), FCPS(USA)