পুদিনা পাতা এর বর্ণনা


শেয়ার করুন

পুদিনা পাতা

উপকারিতা ও অপকারিতা

যার জন্য উপকারী কারণ
গলার ইনফেকশন (Strep throat)

প্রাকৃতিক ব্যাকটেরিয়াল মাইক্রোবিয়াল বিরোধী মেন্থল এবং অন্যান্য উপাদান পুদিনা পাতায় আছে।পুদিনা পাতার এই উপাদানগুলো মুখ এবং গলার ক্ষত প্রতিরোধ করে, এছাড়াও দাঁত মাড়ির ক্ষত সা্রিয়ে তুলতে সাহায্য করে

গ্যাস্ট্রোইসোফেজিয়াল রিফ্লাক্স ডিজিজ/ বুকজ্বালা (Gastroesophageal reflux disease)

পুদিনা পাতা শরীরে নির্দিষ্ট অংশের উপর কাজ করতে পারে,এর কারনে পুদিনা পাতার চা আমাদের শ্বাসতন্ত্রের জন্য খুবই উপকারী কারন এর মধ্যে এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা আমাদের জ্বালা-পোড়া জনিত সমস্যা থেকে আরাম দেয়,এটা গলার ঘাঁ বা ইনফেকশন এবং বুক চেপে আসা প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।পুদিনা পাতার একটি তীব্র গন্ধ থাকে যা আমাদের সাইনাস পরিষ্কার রাখতে এবং মানসিক চিন্তা ধারারও উন্নয়ন ঘটায়।

পলিসিস্টিক ওভারিয়ান সিন্ড্রোম (Polycystic ovarian syndrome, PCOS)

পুদিনা পাতার বিভিন্ন শক্তিশালী জৈব যৌগ এন্ড্রোকাইন সিস্টেমের ভিন্ন ভিন্ন পথ দমন উদ্দীপ্ত করে, হরমোনের ভারসাম্য নিখুতভাবে বজায় রাখতে সাহাস্য করে এবং সেই সঙ্গে হির্সুটিজম সহ জটিল বিপাকীয় প্বার্শ প্রতিক্রিয়া প্রতিরোধ,মহিলাদের অত্যাধিক টেসটোসটেরনের মাত্রা হ্রাস করে।

রক্তস্বল্পতা (Anemia)

পুদিনা পাতা লোহিত রক্ত কনিকা এবং হিমোগ্লোবিনের উৎপাদন তরান্বিত করে।এটা শুধু রক্তস্বল্পতাকে প্রতিরোধ করে না হাত-পায়ের রক্ত চলাচল এবং শক্তি বৃদ্ধিতে সাহায্য করে এবং ক্ষত দ্রুত সারিয়ে তুলতে সাহায্য করে

গাম ডিজিজ

প্রাকৃতিক ব্যাকটেরিয়াল মাইক্রোবিয়াল বিরোধী মেন্থল এবং অন্যান্য উপাদান পুদিনা পাতায় আছে।পুদিনা পাতার এই উপাদানগুলো মুখ এবং গলার ক্ষত প্রতিরোধ করে, এছাড়াও দাঁত মাড়ির ক্ষত সা্রিয়ে তুলতে সাহায্য করে

ডেন্টাল ক্যারিজ

প্রাকৃতিক ব্যাকটেরিয়াল মাইক্রোবিয়াল বিরোধী মেন্থল এবং অন্যান্য উপাদান পুদিনা পাতায় আছে।পুদিনা পাতার এই উপাদানগুলো মুখ এবং গলার ক্ষত প্রতিরোধ করে, এছাড়াও দাঁত মাড়ির ক্ষত সা্রিয়ে তুলতে সাহায্য করে

দুর্গন্ধযুক্ত শ্বাস প্রাকৃতিক ব্যাকটেরিয়াল  মাইক্রোবিয়াল বিরোধী মেন্থল এবং অন্যান্য উপাদান পুদিনা পাতায় আছে।পুদিনা পাতার এই উপাদানগুলো মুখ এবং গলার ক্ষত প্রতিরোধ করেএছাড়াও দাঁত  মাড়ির ক্ষত সা্রিয়ে তুলতে সাহায্য করে
ফুসফুসের রোগ

পুদিনা পাতা শরীরে নির্দিষ্ট অংশের উপর কাজ করতে পারে,এর কারনে পুদিনা পাতার চা আমাদের শ্বাসতন্ত্রের জন্য খুবই উপকারী কারন এর মধ্যে এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা আমাদের জ্বালা-পোড়া জনিত সমস্যা থেকে আরাম দেয়,এটা গলার ঘাঁ বা ইনফেকশন এবং বুক চেপে আসা প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।পুদিনা পাতার একটি তীব্র গন্ধ থাকে যা আমাদের সাইনাস পরিষ্কার রাখতে এবং মানসিক চিন্তা ধারারও উন্নয়ন ঘটায়।

পরিপাকতন্ত্রের রোগ

পুদিনা পাতা শরীরে নির্দিষ্ট অংশের উপর কাজ করতে পারে,এর কারনে পুদিনা পাতার চা আমাদের শ্বাসতন্ত্রের জন্য খুবই উপকারী কারন এর মধ্যে এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা আমাদের জ্বালা-পোড়া জনিত সমস্যা থেকে আরাম দেয়,এটা গলার ঘাঁ বা ইনফেকশন এবং বুক চেপে আসা প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।পুদিনা পাতার একটি তীব্র গন্ধ থাকে যা আমাদের সাইনাস পরিষ্কার রাখতে এবং মানসিক চিন্তা ধারারও উন্নয়ন ঘটায়।

শ্বসনতন্ত্রের রোগ

পুদিনা পাতা শরীরে নির্দিষ্ট অংশের উপর কাজ করতে পারে,এর কারনে পুদিনা পাতার চা আমাদের শ্বাসতন্ত্রের জন্য খুবই উপকারী কারন এর মধ্যে এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা আমাদের জ্বালা-পোড়া জনিত সমস্যা থেকে আরাম দেয়,এটা গলার ঘাঁ বা ইনফেকশন এবং বুক চেপে আসা প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।পুদিনা পাতার একটি তীব্র গন্ধ থাকে যা আমাদের সাইনাস পরিষ্কার রাখতে এবং মানসিক চিন্তা ধারারও উন্নয়ন ঘটায়।

মানসিক চাপ

পুদিনা পাতা শরীরে নির্দিষ্ট অংশের উপর কাজ করতে পারে,এর কারনে পুদিনা পাতার চা আমাদের শ্বাসতন্ত্রের জন্য খুবই উপকারী কারন এর মধ্যে এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা আমাদের জ্বালা-পোড়া জনিত সমস্যা থেকে আরাম দেয়,এটা গলার ঘাঁ বা ইনফেকশন এবং বুক চেপে আসা প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে।পুদিনা পাতার একটি তীব্র গন্ধ থাকে যা আমাদের সাইনাস পরিষ্কার রাখতে এবং মানসিক চিন্তা ধারারও উন্নয়ন ঘটায়।

ক্রনিক ডিজিজ

পুদিনা পাতায় আর অন্যান্য যে সকল উপাদান রয়েছে সেগুলো হলো-লাইমোনিন, সিনিওল, পাইনিন, ভিটামিন-,ভিটামিন-সি, রিবোফ্ল্যাভিন এবং থায়ামিন। পুদিনা পাতাতেই অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এবং বিপাক ক্রিয়ার নিয়ন্ত্রক উপাদান রয়েছে,যার ফলে এটা একাধারে শক্তিশালী ক্রনিক ডিজিজ প্রতিরোধক যেমন-ক্যান্সার,যার বেশি্র ভাগই আমাদের সুস্থ কোষগুলো মুক্ত মুলক দ্বারা আক্রান্ত হওয়ার কারনে হয়ে থাকে।অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট এই মুক্ত মুলক নিষ্ক্রিয় করে এবং তার শরীর থেকে নিষ্কাশনে সাহায্য করে।

যার জন্য অপকারি কারণ
অ্যালার্জি (Allergy)

যারা অ্যালার্জি জনিত সমস্যায় ভুগছেন তাদেরকে অবশ্যই পুদিনা পাতা এড়িয়ে চলতে হবে। বুক জ্বালাপোড়া করলে পুদিনা পাতা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করলেও মাঝে মাঝে পুদিনা পাতার অধিক গ্রহণ বুক জ্বালাপোড়ার কারণ হতে পারে। সেক্ষেত্রে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।  

গ্যাস্ট্রোইসোফেজিয়াল রিফ্লাক্স ডিজিজ/ বুকজ্বালা (Gastroesophageal reflux disease) যারা অ্যালার্জি জনিত সমস্যায় ভুগছেন তাদেরকে অবশ্যই পুদিনা পাতা এড়িয়ে চলতে হবে। বুক জ্বালাপোড়া করলে পুদিনা পাতা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করলেও মাঝে মাঝে পুদিনা পাতার অধিক গ্রহণ বুক জ্বালাপোড়ার কারণ হতে পারে। সেক্ষেত্রে অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।  

সারমর্ম

পুষ্টিতথ্য

  • পরিবেশন আকার: ১০০ গ্রাম
  • পরিবেষনার ধরন: ১৮ টেবিল চামচ

ক্যালরি: ৪৪ কিলোক্যালরি

  • শর্করা: ৮.৪১ গ্রাম
  • ফ্যাট: ০.৭৩ গ্রাম
  • ভিটামিন সি: ১৩.৩ মিলিগ্রাম
  • ভিটামিন এ: ৪০৫৪ I.U. (আন্তর্জাতিক একক)
  • প্রোটিন: ৩.২৯ গ্রাম
  • পানি: ৮৫.৫৫ গ্রাম

খাদ্য পুষ্টি

  • আঁশ: ৬.৮ গ্রাম
  • ভিটামিন- বি-১ (থায়ামিন): ০.০৭৮ মিলিগ্রাম
  • ভিটামিন- বি-২ (রিবোফ্ল্যাভিন): ০.১৭৫ মিলিগ্রাম
  • ভিটামিন- বি-৩ (নায়াসিন): ০.৯৪৮ মিলিগ্রাম
  • ভিটামিন- বি-৬: ০.১৫৮ মিলিগ্রাম
  • ফোলেট: ১০৫ মাইক্রোগ্রাম
  • ভিটামিন- বি-৫ (প্যান্টোথিনিক এসিড): ০.২৫ মিলিগ্রাম
  • ভিটামিন- এ,আর-এ-ই (RAE): ২০৩ মাইক্রোগ্রাম
  • সোডিয়াম: ৩০ মিলিগ্রাম
  • পটাসিয়াম (K): ৪৫৮ মিলিগ্রাম
  • ক্যালসিয়াম (Ca): ১৯৯ মিলিগ্রাম
  • ফসফরাস (P): ৬০ মিলিগ্রাম
  • ম্যাগনেসিয়াম (Mg): ৬৩ মিলিগ্রাম
  • লৌহ: ১১.৮৭ মিলিগ্রাম
  • জিংক (Zn): ১.০৯ মিলিগ্রাম
  • তামা (Cu): ০.২৪ মিলিগ্রাম
  • ম্যাঙ্গানিজ (Mn): ১.১১৮ মিলিগ্রাম
  • অ্যাশ: ২.০৩ গ্রাম
  • ফাইটোস্টেরল: ১০ মিলিগ্রাম
  • স্যাচুরেটেড ফ্যাটি এসিড: ০.১৯১ গ্রাম
  • হেক্সাডেকানয়িক এসিড: ০.১৩৭ গ্রাম
  • অক্টাডেকানয়িক এসিড: ০.০২ গ্রাম
  • টেট্রাডেকানয়িক এসিড: ০.০০৪ গ্রাম
  • মোনো-আনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি এসিড: ০.০২৫ গ্রাম
  • হেক্সাডেসিনয়িক: ০.০০২ গ্রাম
  • অক্টাডেসিনয়িক এসিড: ০.০২২ গ্রাম
  • পলি-আনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি এসিড: ০.৩৯৪ গ্রাম
  • অক্টাডেকাডিইনয়িক এসিড: ০.০৫৪ গ্রাম
  • অক্টাডেকাট্রিইনয়িক এসিড: ০.৩৩৮ গ্রাম
  • এলানিন: ০.১৭১ গ্রাম
  • আরজিনিন: ০.১৫১ গ্রাম
  • এসপারটিক এসিড: ০.৩৮৮ গ্রাম
  • সিস্টিন: ০.০৩৬ গ্রাম
  • গ্লুটামিক এসিড: ০.৩৫৮ গ্রাম
  • গ্লাইসিন: ০.১৫৮ গ্রাম
  • হিস্টিডিন: ০.০৬৬ গ্রাম
  • আইসোলিউসিন: ০.১৩৫ গ্রাম
  • লিউসিন: ০.২৪৭ গ্রাম
  • লাইসিন: ০.১৪১ গ্রাম
  • মিথিয়োনিন: ০.০৪৬ গ্রাম
  • ফিনাইলএলানিন: ০.১৬৮ গ্রাম
  • প্রোলিন: ০.১৩৫ গ্রাম
  • সিরিন: ০.১২৮ গ্রাম
  • থ্রিয়োনিন: ০.১৩৫ গ্রাম
  • ট্রিপটোফেন: ০.০৫ গ্রাম
  • টাইরোসিন: ০.০৯৯ গ্রাম
  • ভেলিন: ০.১৬৪ গ্রাম