ভেঁড়ার কলিজা এর বর্ণনা


শেয়ার করুন

ভেঁড়ার কলিজা

উপকারিতা ও অপকারিতা

যার জন্য উপকারী কারণ
রক্তস্বল্পতা (Anemia)

ভেড়ার কলিজায় প্রচুর পরিমাণে আয়রন রয়েছে। কলিজার ১৮ মিলিগ্রাম গ্রহণ করলে আয়রনের প্রতিদিনের চাহিদার ৬১ ভাগ পূরণ হয়ে থাকে। গরুর কলিজার এক পরিবেশনায় ৫.২ মিলিগ্রাম আয়রন থাকে যা ভেড়ার কলিজার তুলনায় কম। ভেড়ার কলিজায় ১ আউন্স গ্রহণ করলে কপারের প্রতিদিনের চাহিদার ১০০ ভাগ এবং সোডিয়াম ও জিঙ্কের চাহিদার ২৫ ভাগ পূরণ হয়ে থাকে। লোহিত রক্ত কনিকা গঠনে এবং আয়রনের বিপাকে ভিটামিন বি-১২, ফোলেট ও কপার সাহায্য করে থাকে। সেলেনিয়াম (Selenium) একটি অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট যা বিভিন্ন ধরণের এনজাইম তৈরিতে ও পুরুষ প্রজননে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে শরীরের বিভিন্ন ক্ষত নিরাময় ও রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে জিঙ্ক সাহায্য করে

স্বাস্থ্যের জন্য উপাকারী

মাংসপেশী, চুল, নখ এবং শরীরের অন্যান্য টিস্যুর বৃদ্ধি ও রক্ষণাবেক্ষণে প্রোটিন একটি প্রয়োজনীয় ম্যাক্রোনিট্রিয়েন্ট হিসেবে কাজ করে। এনজাইম ও হরমোন তৈরিতে প্রোটিন একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। অনেকেই মনে করেন ভেড়ার কলিজায় প্রচুর পরিমাণে ফ্যাট ও ক্যালরি রয়েছে কিন্তু এই ধারণা পুরোপুরি সঠিক নয়। ১ আউন্স ভেড়ার কলিজায় ২.৪ গ্রাম ফ্যাট বা প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় চাহিদার ৩ ভাগ বা ৪৯ ক্যালরি থাকে। মুরগীর কলিজায় ভেড়া বা গরুর কলিজার তুলনায় কম ফ্যাট ও প্রোটিন থাকে। 

স্নায়ু তন্ত্রের কার্যকারিতা

ভেড়ার কলিজা ভিটামিনের একটি উৎকৃষ্ট উৎস। ১ আউন্স ভেড়ার কলিজায় প্রতিদিনের প্রয়োজনীয় ভিটামিন বি-১২ এবং ভিটামিন এ চাহিদার ১০০ ভাগই পূরণ হয়ে থাকে। এছাড়াও, ভেড়ার কলিজা ফোলেট ও রিবোফ্ল্যাভিনের একটি উৎকৃষ্ট উৎস। লোহিত রক্ত কনিকা এবং স্নায়ুতন্ত্র গঠনে  ভিটামিন বি-১২ একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদানভিটামিন-এ চোখ, চুল এবং ত্বকের সুস্থতা বজায় রাখতে সাহায্য করে। হজম ও লোহিত রক্ত কনিকা গঠনে ফোলেট (Folate) এবং খাদ্য থেকে শরীরে শক্তি সরবারহ করতে রিবোফ্ল্যাভিন সহায়তা করে।

যার জন্য অপকারি কারণ
গাউট/গেঁটেবাত (Gout)

ভেড়ার কলিজায় প্রচুর পরিমাণে পিউরিন (purines) রয়েছে যা কিডনিতে পাথর ও গেঁটেবাত রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি করে। 

কিডনিতে পাথর (Kidney stone)

ভেড়ার কলিজায় প্রচুর পরিমাণে পিউরিন (purines) রয়েছে যা কিডনিতে পাথর ও গেঁটেবাত রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি করে। 

গর্ভবতী মহিলা

ভেড়ার কলিজা সঠিক পরিমাণে গ্রহণ করা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী কিন্তু অধিক পরিমাণে গ্রহণ করলে এটা শরীরের জন্য ক্ষতিকারক হতে পারে কারণ এতে প্রচুর পরিমাণে কোলেস্টেরল রয়েছে। কলিজা বা কলিজা দিয়ে তৈরি খাবার গর্ভবতী নারীদেরকে এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়ে থাকেন চিকিৎসকরা। কারণ এতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ রয়েছে যা নবজাতক শিশুদের জন্য খুব ক্ষতিকর। 

সারমর্ম

পুষ্টিতথ্য

  • পরিবেশন আকার: ১০০ গ্রাম
  • পরিবেষনার ধরন: ১ পিস

ক্যালরি: ১৫০ কিলোক্যালরি

  • শর্করা: ১.৩ গ্রাম
  • ফ্যাট: ৭.৫ গ্রাম
  • ভিটামিন সি: ২০ মিলিগ্রাম
  • প্রোটিন: ১৯.৫ গ্রাম

খাদ্য পুষ্টি

  • ভিটামিন- বি-১ (থায়ামিন): ০.৩৬ মিলিগ্রাম
  • ভিটামিন- বি-২ (রিবোফ্ল্যাভিন): ১.৭ মিলিগ্রাম
  • ভিটামিন- বি-৩ (নায়াসিন): ১৭.৬ মিলিগ্রাম
  • ক্যারোটিনয়েডস: ১৮৩০ মাইক্রোগ্রাম
  • ক্যালসিয়াম (Ca): ১০ মিলিগ্রাম
  • ফসফরাস (P): ৩৮০ মিলিগ্রাম
  • লৌহ: ২.৫ মিলিগ্রাম
  • অ্যাশ: ১.৫ গ্রাম
  • জলীয় অংশ: ৭০.৪ গ্রাম